বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ০৪:৫৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
মঠবাড়িয়ার ধর্ষণে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী অন্তঃসত্বা ॥ ধর্ষক গ্রেফতার কালিগঞ্জে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে নেছারাবাদে “যোগাযোগ দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ” অনুষ্ঠিত ঝালকাঠিতে জেলা পুলিশের একাধিক অভিযানে আটক-২ ইয়াবা ও গাজা উদ্ধার বাংলাদেশের গর্বের, স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন হতে যাচ্ছে আগামী ২৫ জুন ২০২২ তারিখে টাঙ্গাইলের মধুপুরে আইন শৃঙ্খলা কমিটির আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত র‌্যাব -৭, চট্টগ্রামের অভিযানে কক্সবাজার জেলার উখিয়া থেকে ১ লাখ ৭০ হাজার পিস ইয়াবাসহ ০৩ জন ইয়াবা ব্যবসায়ী আটক। সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলমের মৃত্যুতে বিএমএসএফ’র গভীর শোক ও সমবেদনা দিগন্ত ফাউন্ডেশনের সভাপতি ও সম্পাদক পুনরায় বহাল ৬৯ নং মধ্য যৌতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ দেখে হতাশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।
তুরস্কের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এরদোগান বিজয়ী

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এরদোগান বিজয়ী

তুরস্কে সাংবিধানিকভাবে শাসন কাঠামোতে পরিবর্তন আনার পর প্রথমবারের মতো একসঙ্গে অনুষ্ঠিত হলো প্রেসিডেন্ট ও পার্লামেন্টের নির্বাচনের ভোট গ্রহণ। সেই নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে সরাসরি বিজয়ী হয়েছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। বেসরকারি ফলাফলে দেখা যায়, এরদোগান ৫৩ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মুহাররম ইনজে পেয়েছেন ৩১ শতাংশ ভোট।

এদিকে পার্লামেন্ট নির্বাচনেও এরদোগানের দল জাস্টিস এন্ড ডেভেলপমেন্ট (একে) পার্টির নেতৃত্বাধীন জোট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে। ৯৬ শতাংশ ভোট গণনা শেষে দেখা যায় জোটগতভাবে পার্লামেন্টে তারা ৫৫ শতাংশ ভোট পেয়েছে। পার্লামেন্ট নির্বাচনে জোটগতভাবে বিজয়ী হলেও পার্লামেন্টে একে পার্টির একাধিপত্যের অবসান হয়েছে। এখন পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে কোনও সিদ্ধান্ত নিতে তাদের জোট সঙ্গী এমএইচপির সমর্থন প্রয়োজন হবে। আর কোনও সাংবিধানিক পরিবর্তনের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে প্রধান বিরোধী জোট সিএইচপি অথবা কুর্দি সমর্থিত দল এইচডিপির সমর্থন প্রয়োজন হবে।
এককভাবে ৫০ শতাংশের বেশি ভোট না পেলে এরদোগানকে দ্বিতীয় দফায় ভোটে অবতীর্ণ হতে হতো। তখন ১৫ দিনের ব্যবধানে মুহররম এনজের সঙ্গে এককভাবে লড়াইয়ে নামতে হতো তাকে। এখন সরাসরি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ায় তুরস্কের বিভিন্ন শহরে এরদোগানের সমর্থকরা আনন্দ মিছিল করছে। রাতে তারা আলো জালিয়ে নেচে গেয়ে বিজয় উদযাপন করছে।
তুরস্কে ক্ষমতাসীন রিসেপ তায়েপ এরদোগান বিপুলভাবে জনপ্রিয় হলেও এবারই তাকে সবচেয়ে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পড়তে হবে বলে বিশ্লেষকরা বলছিলেন। কারণ ইনজের সাম্প্রতিক জনসভাগুলোয় ব্যাপক লোকসমাগম হওয়ায় সেই ধারণা জোরদার হয়েছিল।
এরদোগান প্রেসিডেন্ট হিসেবে দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তুরস্কের সংবিধানে তিনি যে পরিবর্তন এনেছেন তাতে প্রেসিডেন্টকে নতুন এবং ব্যাপক ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। এরদোগান ২০১৪ সালে প্রেসিডেন্ট হবার আগে ১১ বছর প্রধানমন্ত্রী ছিলেন।
এর মধ্যেই একে পার্টির সরকার উৎখাতের প্রচেষ্টা হিসেবে ২০১৬ সালে তুরস্কে একটি ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থান হয়। এরপর থেকেই দেশটিতে জরুরি অবস্থা চলছে। বিবিসি ও আল জাজিরা।

 

Print Friendly, PDF & Email

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Comments are closed.




© All rights reserved © MKProtidin.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com