বৃহস্পতিবার, ০৭ Jul ২০২২, ০৮:৩৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
কালিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সভা উৎসব মুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে সমুদ্রপথে হজ্জ্বযাত্রাঃ- পর্ব-২।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন অনিয়মিত হয়ে গেলে ফিরে আসা কঠিন,কিন্তু অসম্ভব না পিরোজপুর বেকুটিয়া এলাকায় ৮ম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু উদ্বোধনের আগেই বিদ্যুতের তামার তার চুরি খুলনার পাইকগাছায় আনসার ও ভিডিপির মাসব্যাপি বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পিরোজপুরে ৬ জন সরকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের শুদ্ধাচার পুরস্কারের চেক তুলে দেন জেলা প্রশাসন মোহাম্মদ জাহেদুর রহমান আশাশুনি পল্লী সমাজ পুনঃ গঠন গোপালপুরে কলা পাড়তে গিয়ে বিদ্যুৎপৃষ্টে যুবক নিহত।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন কালিগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আহমদ আলীর মৃত্যু। রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দাফন দেবহাটার ভাতশালা সম্মিলনী উচ্চ বিদ্যালয়ের নব-নির্মিত ৪তলা ভবনের উদ্বোধন করলেন ডা: রুহুল হক এমপি”
অশেষ কৃতজ্ঞতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী… মেধার ভিত্তিতে পুলিশে চাকরি : চমক সৃষ্টি করলেন সাতক্ষীরার যমজ দুই বোন

অশেষ কৃতজ্ঞতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী… মেধার ভিত্তিতে পুলিশে চাকরি : চমক সৃষ্টি করলেন সাতক্ষীরার যমজ দুই বোন

লিটনঃ বাংলাদেশ পুলিশে চাকরি পেয়ে চমক সৃষ্টি করেছেন সাতক্ষীরার যমজ দুই বোন ফারহানা জাহান ও ফারজানা জাহান। মাত্র ১২০ টাকা দিয়ে ফরম ফিলাপ করার পর লিখিত ও মৌখিকসহ আরো বেশ কিছু পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়ে চাকরি পেয়েছেন তাঁরা। ফারহানা-ফারজানা সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার ফকরাবদ গ্রামের ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি মো. আসাদুল ইসলাম ও মোছা. রেহেনা বেগম দম্পত্তির সন্তান। ২০১৩ সালের ২৬ নভেম্বর রাতে সাঈদী-নিজামীর ফাঁসির রায়কে কেন্দ্র করে চলা তা-বে জামাত-শিবিরের হামলায় দুটি পা হারান আসাদুল ইসলাম।

পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তির এমন অবস্থায় পড়াশোনা অনিশ্চিত হয়ে যায় ফারজানা, ফারহানা ও তাদের বড় বোন আফসানার। ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তায় ও রেহেনা বেগমের দর্জির কাজ দিয়ে কোনোরকমে চলছিল পাঁচজনের সংসার।পরিবারটির সামনে আজ সুন্দর ভবিষ্যতের হাতছানি।

আশাশুনি মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণিতে অধ্যয়রনরত ও সদ্য বাংলাদেশ পুলিশে নিয়োগ পাওয়া ফারহানা ও ফারজানা বলেন, “ছোটবেলা থেকেই ইচ্ছা ছিল পুলিশে চাকরি করার। অবশেষে আমাদের সেই ইচ্ছা আল্লাহ্ পূরণ করেছেন। আমরা যেন বাবা-মায়ের কষ্ট দূর করতে পারি সেজন্য সকলের দোয়া চাই।” ফারহানা-ফারজানার মা রেহেনা বেগম বলেন, “অনেক কষ্ট করে মেয়েদের বড় করেছি। মেয়েদের পুলিশ হওয়ার ইচ্ছা পূরণ হয়েছে সেজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আইজিপি ও জেলা পুলিশ সুপারকে অসংখ্য ধন্যবাদ।”

Print Friendly, PDF & Email

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Comments are closed.




© All rights reserved © MKProtidin.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com