সোমবার, ২১ Jun ২০২১, ১২:৪৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
মুন্সীগঞ্জে ফুটবল লীগ টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন দেশকে এগিয়ে নিতে নারী উদ্যোক্তাদের ভূমিকা।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন রোয়াংছড়িতে ২য় পর্যায়ে ঘর পাচ্ছেন ১২০টি গৃহহীন পরিবার।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন কালিগঞ্জে শেখ হাসিনা’র উপহার হিসেবে ২০টি ঘর পেল ভূমিহীন অসহায়রা মুজিব শতবর্ষে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না-প্রধানমন্ত্রী।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন সোনারগাঁ থানায় ৩ ঘন্টা ০৫ মিনিটে চুরি মামলার আসামী সনাক্ত।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন সাংবাদিকদের পর্যবেক্ষন কার্ড প্রদানে গড়িমসির অভিযোগ।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন “ক্লিন সাতক্ষীরা গ্রিন সাতক্ষীরা।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন মুন্সীগঞ্জে নতুন ঠিকানা পেলো ৩২৫টি পরিবার।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন সোনারগাঁয়ে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের মাঝে জমিসহ ঘর হস্তান্তর।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে বিপদসীমার ৪০ সেন্টিমিটার করতোয়ার পানি বড় বন্যার আশঙ্কা।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে বিপদসীমার ৪০ সেন্টিমিটার করতোয়ার পানি বড় বন্যার আশঙ্কা।

 

শেখ মোঃ সাইফুল ইসলাম গাইবান্ধা  :উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও গত কয়েক দিনের মুষলধারে টানা বর্ষণে করতোয়ার পানি অস্বাভাবিক হাড়ে বৃদ্ধি পেয়েছে।
গাইবান্ধা জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড সুত্রে তথ্যে জানা গেছে বৃহস্পতিবার  ৩টার পূর্ববর্তী ২৪ ঘন্টায় গোবিন্দগঞ্জের কাটাখালী পয়েন্টে করতোয়া নদীর পানি ৩৫ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৪০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধির ফলে এরই মধ্যে উপজেলার চরাঞ্চল ও নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হতে শুরু করেছে।
উপজেলার ফুলবাড়ি, দরবস্ত, সাপমারা,
তালুককানুপুর ও হরিরামপুর ইউনিয়ন ও পৌরসভার একাংশের নিম্নাঞ্চলসহ চরাঞ্চল প্লাবিত হতে শুরু করেছে।
পানি বৃদ্ধির এ গতি অব্যাহত থাকলে দুই এক দিনের মধ্যেই কয়েক হাজার মানুষের ঘর বাড়ী পানিতে তলিয়ে পানিবন্দী হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
এদিকে পানি বৃদ্ধি ও বর্ষণে নদীভাঙ্গনে তীব্র আকার ধারণ করেছে।
গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বেশ কয়েকটি পয়েন্টগুলোর মধ্যে রয়েছে দরবস্ত ইউনিয়নের গোসাইপুর, হরিরামপুর ইউনিয়নের পার ধুন্দিয়া,
রাখালবুরুজ ইউনিয়নের বিষপুকুর, মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের বোচাদহ, ফুলবাড়ি ইউনিয়নের কুন্দরপাড়া, এসকল এলাকা ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ।
এ বিষয়ে গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোখলেছুর রহমান জানান ঝুঁকিপূর্ণ নদী ভাঙ্গন পয়েন্টগুলোতে জিও ব্যাগ দিয়ে ড্যাম্পিং করে ভাঙ্গন ঠেকানোর চেষ্টা করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।
একই সাথে তিনি জানিয়েছেন প্রবল বৃষ্টির ফলে পানি হঠাৎ বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে নদ নদী গুলোতে।
এমনকি তিনি আরো জানান বৃষ্টিপাত না হলে পানি দু’একদিন বাড়ার পর কমতে শুরু করবে বলে জানিয়েছেন

Print Friendly, PDF & Email

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Comments are closed.




© All rights reserved © MKProtidin.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com