মঙ্গলবার, ২৭ Jul ২০২১, ০৮:০৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
আজ সন্ধ্যায় দিল্লিতে সনিয়ার সাথে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক মমতার রাজশাহীতে দৃষ্টি প্রতিবন্ধীরা পেলো আরএমপির ত্রাণ সহায়তা।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন কালিগঞ্জে শহীদ জাহেদা’র ২৩ তম শাহাদৎ বার্ষিকীতে বিভিন্ন কর্মসূচী পালিত হয়েছে চার্লস ডিকেন্সের বেঙ্গল কানেকশন আর আমার খেয়ালী মন সচিব আবদুল মান্নান জনপ্রশাসন পদক পাওয়ায় উপসচিব আলমগীরের অভিনন্দন মৌমিতার সুস্থ্যতার জন্য সকলের কাছে দোয়া কামনা।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন সোহেল সরদার এর জন্মদিনে অভিনন্দন জানিয়েছেন কবির নেওয়াজ।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন তিনদিন ব্যাপী বিনামূল্যে সাংবাদিক প্রশিক্ষণের রেজিষ্ট্রেশন শুরু।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন ভারতের এই প্রথম ভোট কেনার অপরাধে টি আর এস সংসদ সদস্য শ্রীমতী মাথল কবিতার ছয় মাসের জেলের নির্দেশ বাহরাইনের মেডিকেল টিম ও WHO পরিচালকের সংবাদ সম্মেলন।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন
কোটি বাঙালির হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু – কবির নেওয়াজ রাজ

কোটি বাঙালির হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু – কবির নেওয়াজ রাজ

আগস্ট মানেই জাতির জনক হারানোর মাস। এ মাসের পনের তারিখ আমরা আমাদের বাঙ্গালী জাতির জনক কে হারিয়েছিলাম। ১৫ আগস্ট ১৯৭৫, সালে কোটি কোটি বাঙালি তাদের অভিভাবক কে হারিয়ে ফেলেছিল। সারা জাতি স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল, কাঁদতে পারেনি ভয়ে। সে এক অসহনীয় সময়, যন্ত্রণাকাতর দিন-রাত। অভিভাবক হারিয়ে গেছে, বুকে পাষাণভার। তবু চোখ থেকে পানি পড়া বারণ, আর্তি আহাজারি করা বারণ। যে সঙ্গীন কেড়ে নিয়েছিল বাঙালি জাতির জনক আর তার পুরো পরিবারকে, সে সঙ্গীনের ভয়ে কাঁদতে পারেনি বাঙালি জাতি। শুধু যাদের বুকে সঙ্গীন ধরা যায় না সেই স্বাধীন দেশের আকাশ বাতাসে ধূলিকণা কেঁদেছিল, বাঙালি ফেলেছিল নীরব দীর্ঘশ্বাস! কী ভয়ঙ্কর, কী নিষ্ঠুর আর কী ভয়াল ছিল সেই দিন রাত! ওই রাতে স্ত্রী শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব, ছেলে শেখ কামাল, শেখ জামাল, ১০ বছরের শিশুপুত্র শেখ রাসেল, দুই পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রাজি জামাল, সহোদর, আত্মীয় পরিজনসহ নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হন জাতির জনক। সেই হত্যাযজ্ঞে আরো শহীদ হন বঙ্গবন্ধুর ছোটভাই মুক্তিযোদ্ধা শেখ আবু নাসের, ভগ্নিপতি আবদুর রব সেরনিয়াবত, তার ছেলে আরিফ সেরনিয়াবত, মেয়ে বেবী সেরনিয়াবত, শিশুপৌত্র সুকান্ত বাবু, বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে শেখ ফজলুল হক মণি, তার অন্তঃসত্তা স্ত্রী আরজু মণি, নিকটাত্মীয় শহীদ সেরনিয়াবত, আবদুল নঈম খান রিন্টু এবং বঙ্গবন্ধুর জীবন বাঁচাতে ছুটে আসা তার ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কর্মকর্তা কর্নেল জামিলউদ্দিন আহমেদসহ কয়েকজন নিরাপত্তা কর্মকর্তা ও কর্মচারী। বাঙ্গালী জাতি আজও গভীর শোক ও শ্রদ্ধায় স্মরণ করে এসব শহীদকে। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট মধ্যরাতে গণহত্যা চালালো পাকিস্তানি হানাদারদেরই এদেশীয় দোসর কিছু বিশ্বাসঘাতক, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী কিছু রাজনীতিক। সঙ্গে ছিল জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র। সেই ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে বঙ্গবন্ধু নৃশংসভাবে শহীদ হলেন সেই কালরাতে। প্রবাসে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। বঙ্গবন্ধু মাত্র ৫৫ বছরে জীবনে স্বদেশের মাটি আর মানুষকে এমন ভালবাসার বন্ধনে বেঁধেছিলেন যে বন্ধন কোনোদিন ছিন্ন হওয়ার নয়। তাই আজো মানুষ গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করে বঙ্গবন্ধুকে। আল্লাহ্ রাব্বুল আলামিন স্বাধীনতার মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ও তার পরিবারের সকলকে জান্নাতুল ফেরদাউস নসিব করুন।
কলামিষ্ট কবির নেওয়াজ রাজ
এমএসএস “রাষ্ট্রবিজ্ঞান”,
সি সি “জার্নালিজম”, এলএলবি”এফ ই”

 

Print Friendly, PDF & Email

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Comments are closed.




© All rights reserved © MKProtidin.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com