সোমবার, ২১ Jun ২০২১, ০১:৩৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
মুন্সীগঞ্জে ফুটবল লীগ টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন দেশকে এগিয়ে নিতে নারী উদ্যোক্তাদের ভূমিকা।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন রোয়াংছড়িতে ২য় পর্যায়ে ঘর পাচ্ছেন ১২০টি গৃহহীন পরিবার।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন কালিগঞ্জে শেখ হাসিনা’র উপহার হিসেবে ২০টি ঘর পেল ভূমিহীন অসহায়রা মুজিব শতবর্ষে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না-প্রধানমন্ত্রী।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন সোনারগাঁ থানায় ৩ ঘন্টা ০৫ মিনিটে চুরি মামলার আসামী সনাক্ত।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন সাংবাদিকদের পর্যবেক্ষন কার্ড প্রদানে গড়িমসির অভিযোগ।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন “ক্লিন সাতক্ষীরা গ্রিন সাতক্ষীরা।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন মুন্সীগঞ্জে নতুন ঠিকানা পেলো ৩২৫টি পরিবার।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন সোনারগাঁয়ে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের মাঝে জমিসহ ঘর হস্তান্তর।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন
১৪ বছর পর ফিরে আসা রুবেল পুলিশ হেফাজতে।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন

১৪ বছর পর ফিরে আসা রুবেল পুলিশ হেফাজতে।।মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন

সোহেল মিয়া: নারায়ণগঞ্জে অপহরণের পর হত্যা ও গুমের শিকার রুবেল ওরফে আল আমিন জীবিত ফিরে এসেছে ! তাকে গুম করা হয়েছে এই অভিযোগে দুইজন মুক্তিযোদ্ধাসহ ১৯ জনকে আসামী করে ২০০৭ সালে মামলা করা হয়। ১৪ বছর পর বাড়ি ফিরে আসার খবর পেয়ে সেই মামলার আসামীরা তাকে আটক করে থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়। মিথ্যে মামলায় হয়রানির উপযুক্ত বিচার দাবি করেন তারা।
নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার আলীরটেকে কুড়েরপাড় এলাকার জানু মিয়ার ছেলে রুবেল ওরফে আল আমিন। তাকে অপহরণ ও হত্যার পর গুম করা হয়েছে এমন অভিযোগ এনে দুইজন মুক্তিযোদ্ধাসহ ১৯ জনকে আসামী করে ২০০৭ সালে মামলা করে তার মা রহিমা খাতুন। মামলা নং-২৩। তারিখ-২৩ (২) ২০০৭। মামলাটি প্রথমে তদন্ত করে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা। পরে মামলাটির তদন্ত ভার সিআইডিকে দেয়া হলে কয়েক মাস তদন্ত অভিযোগের সত্যতা না পেয়ে আদালতে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে সংস্থাটি।
তবে মামলার বাদী রাহিমা নারাজী দেয়ার পর পুনরায় তদন্তের দায়িত্ব পেয়ে র‌্যাব ১৯ জনের মধ্যে ৬ জনকে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নেয়। র‌্যাব মামলাটির তদন্ত কুল কিনারা না করতে পারায় পরবর্তীতে আবারো মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায় গোয়েন্দা পুলিশ। নারায়ণগঞ্জ গোয়েন্দা পুলিশ তদন্ত শেষে ২০১০ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারী আদালতে চুড়ান্ত প্রতিবেদন (এফআরটি) দাখিল করেন। ওই দিন মামলাটি নিষ্পতি করে আদালত।
রুবেল নিখোঁজ হওয়ার প্রায় ১৪ বছর পর ১৯ মে বুধবার বাড়িতে ফিরে আসলে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে ওই মামলার আসামীরা বৃহস্পতিবার রাতে তাকে নিয়ে আসে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায়। তাকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়ে মিথ্যে মামলায় হয়রানির বিচার দাবি করেন তারা।
মামলার ভিক্টিম রুবেল জানায়, তার মায়ের অত্যাচারেই সে তার বাড়ি ছেড়েছিল ৭ বছর বয়সে। কেউ তাকে অপহরণ করেনি। মামলার ব্যাপার সে কিছুই জানেনা।
এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি শাহ জামান বলেন, ১৪ বছর পর ফিরে আসা যুবক রুবেলকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। তাকে আদালতে কাছে প্রেরণ করা হবে। আদালতের পরবর্তী নির্দেশনানুযায়ী আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য খুঁজে পাওয়া যায়নি মামলার বাদি রুবেলের মাকে। স্থানীয়রা বলছে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হওয়ায় গা ঢাকা দিয়েছে তার পরিবার।
Print Friendly, PDF & Email

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Comments are closed.




© All rights reserved © MKProtidin.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com