রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা মেডিকেল হাসপাতালে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানের চিকিৎসা সরঞ্জাম হস্তান্তর। রাজশাহীতে চাঁদাবাজী ও সন্ত্রাস রোধে বসানো হলো পাঁচটি সিসি ক্যামেরা রাজশাহীতে নারী ও শিশু নির্যাতন পরিস্থিতির অবনতি ঘটছেঃ লফস নাটোরে স্থানীয় সরকারের প্রতিনিধিদের সাথে এডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত রাজশাহীতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ১২ হাজার ২২০ পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী দিচ্ছেন মেয়র লিটন রাজশাহীতে কলেজের চুরি যাওয়া কম্পিউটার সামগ্রী উদ্ধারঃ ০৪ জন আটক যে কোন উপায় ফিরতে হবে কর্মস্থলে! বারুইপুর জেলা পুলিশের তৎপরতায় উদ্ধার হল, ৩০, টি দামি মোবাইল ফোন। ফিরেছেন আসল দাবিদারদের ডায়মন্ড হারবার জেলা পুলিশের তৎপরতায় উদ্ধার, ১৬০,টি, মোবাইল ফোন। ফিরৎ দিলেন প্রকৃত মালিকদের বাগমারায় এমপি এনামুল হকের উদ্যোগে করোনা টিকার ভ্রাম্যমান ক্যাম্প উদ্বোধন
বাংলাদেশ পুলিশের নিম্নোপদস্থদের হ্রদয়ের চাপা না বলা আর্তনাদ প্রসঙ্গে আবেদন ।

বাংলাদেশ পুলিশের নিম্নোপদস্থদের হ্রদয়ের চাপা না বলা আর্তনাদ প্রসঙ্গে আবেদন ।

বরাবর,
মহামান্য রাষ্ট্রপতি ,
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী
গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ।

বিষয় : বাংলাদেশ পুলিশের নিম্নোপদস্থদের হ্রদয়ের চাপা না বলা আর্তনাদ প্রসঙ্গে আবেদন ।

মহামান্য / মাননীয় ,
আটষট্টি (৬৮) হাজারেরও বেশি গ্রাম বাংলার দেশে আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখতে ২৪ ঘন্টা কর্তব্য নিয়োজিত এবং ১৬ -১৮ কোটির বেশি মানুষের জান – মালের নিরাপত্তায় দিন – রাত নিয়োজিত প্রায় ২ লক্ষ ৫ হাজার বাংলাদেশ পুলিশ সদস্য। দুষ্টের দমন শিষ্টের পালন, প্রত্যেকে আমরা পরের তরে, সেবাই পুলিশের ধর্ম । এই মুল মন্ত্রকে সঙ্গী করে নিজের জীবন ঝুকিপুর্ন জেনেও মানুষের নির্বিঘ্ন জীবনযাপন – জীবনযাত্রা নিশ্চিত করতে সর্বক্ষণ রাস্তা – ঘাটে সর্বজায়গায় সচেষ্ট বাংলাদেশ পুলিশ। ব্যক্তি, দল, মত, সংস্থা সবার প্রয়োজনে সর্বক্ষণ বাংলাদেশ পুলিশ ।
যারা সবার প্রয়োজনে সর্বক্ষণ তাদের প্রয়োজন মেটাতে কিসের প্রয়োজন ?

★ বাংলাদেশ পুলিশের অতীত :-
দেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ,অপরাধ দমন, অপরাধী গ্রেফতার জননিরাপত্তা উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের নিমিত্তে ১৮৬১ সালে পুলিশ বাহিনী প্রথম গঠন করা হয় । তারপর বিভিন্ন দেশের নিয়ম অনুযায়ী পুলিশ বাহিনী গঠন হয় । বাংলাদেশে ১৯৭১ সালে বিজয় অর্জনের পর এক বিধ্বস্ত ও নাজুক পরিবেশে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী পুর্নগঠিত হয় । তারপর থেকে নিরলস নিষ্ঠায় শ্রম দিয়ে দেশের শান্তি – শৃঙ্খলা বজায় রেখেছে ও সর্বসাধারণের জননিরাপত্তা আরো জোরদার করে পুলিশ জনগনের বন্ধু হয়ে বিপদ – আপদে পাশে থাকছে দিন রাত ডাকা মাত্র ।
শুধু তাই নয়, বিগত সকল সরকারের আমলেও পুলিশ ১৬-১৮ ঘন্টা ডিউটি করেছে দায়িত্ব ও নিষ্ঠার সাথে ।

★ বাংলাদেশ পুলিশের সুযোগ-সুবিধা :-
আট (৮) ঘন্টা ডিউটি করে সকল সরকারী কর্মচারী যে বেতন পান একজন পুলিশ ১৬-১৮ ঘন্টা ডিউটি করে, বেশি কষ্ট করে সেও সেই একই বেতন পান । পুলিশের সুযোগ সুবিধা বলতে কোন কথা নেই আছে শুধু দাসত্বের ন্যায় দাস হয়ে ডিউটি করে যাওয়া । আন্তর্জাতিক শ্রম আইনে ৮ ঘন্টার শ্রমের কথা লিখা আছে,’ তারপর কেউ যদি ৮ ঘন্টার বেশি ডিউটি করে তবে সে ওভার টাইম পাবে কিন্তু বাংলাদেশ পুলিশ সেটা পায় না । দেশ ডিজিটাল হচ্ছে কিন্তু পুলিশ সেই বৃটিশের পুরনো আইনে চলছে । পুলিশ কি বাংলাদেশের ডিজিটাল হওয়ার যোগ্য নয় ? নাকি সেই বৃটিশ শাসকেরা বাংলাদেশ পুলিশ কে চালাচ্ছে ?

★ সর্বসাধারণের আলোচনা -সমলোচনায় বাংলাদেশ পুলিশ :-
বাংলাদেশ পুলিশকে নিয়ে এদেশের বেশির ভাগ লোকই নেতিবাচক ভঙ্গি তে দেখে থাকে । পুলিশই একা ঘুষ খায় এটা ঠিক নয় , এদেশের সরকারী সকল প্রতিষ্ঠানেই ঘুষের লেনদেন চলে , পুলিশের চেয়েও অনেক বেশি । যদিও পুলিশ দুর্নীতি করে থাকে অন্যদের তুলনায় খুবই কম, যদি ঘুষ খেয়ে থাকে তাহলে বলবো এটা স্বাভাবিক ব্যাপার ! কেন জানেন ? সকল সরকারী কর্মচারী ৬ -৮ ঘন্টা অফিস শেষে বা ডিউটি শেষে কিছু না কিছু কর্ম করতে পারে , পরিবারের ইনকাম বাড়াতে পারে । যেমন ধরুন, ডাক্তার ৪ -৫ ঘন্টা হাসপাতালে রোগী দেখে বাকি সময় কাজ ফাকি দিয়ে প্রাইভেট ক্লিনিকে রোগি দেখে টাকা উপার্জন করে, এমন আরো অনেকে আছে যারা অফিস শেষে বাড়িতে বা বাসায় বা অন্য কোথাও ব্যাবসা -বানিজ্য, কাজের সুযোগ-সুবিধা পায় । কিন্তু শতকরা ৯০জন পুলিশ ঠিক মতো গোসল, খাওয়া ও ঘুমাতেও পারে না , ডিউটি আর ডিউটি ! পুলিশ ২৪ ঘন্টার জন্য ভর্তি এবং ২৪ ঘন্টাই নিয়োজিত, ২৪ ঘন্টাই তাকে হাজির থাকতে হয় । ইচ্ছে করলেই আর অন্য সরকারি চাকরীজিবীর মতো অতিরিক্ত অর্থ উপার্জন বা কোন ব্যাবসা করতে পারে না । পুলিশের চাকরী করলে চাকরী ছাড়া অন্য সকল কর্ম বন্ধ। পরিশ্রম অনুযায়ী বেতন -ভাতা খুবই কম তাই ঘুষ খাওয়াটাই স্বাভাবিক ! তাই বলে সবাই যে ঘুষ আদান – প্রদান করে বা সকলেই ঘুষ পায় এটা ঠিক নয়, হয়তো দেখা গেছে শতকরা ০৮-১০ % ঘুষ নামক শব্দের সাথে কোন না কোন এক সময়ে জড়িত ছিল বা ০৮ -১০ % কম বেশী থাকতে পারে । আর যারা বেতনের বাহিরে অতিরিক্ত কোন টাকা পায় না তাদের কষ্ট করে সংসার বা পরিবার মা -বাবা, সন্তানদের লেখা পড়া সহ সকল প্রকার খরচ চলাতে হয় । দুর্ভাগ্য এদেশের মানুষের ও দেশের । একজন দেশ সেবক কে কষ্ট করে পরিবার-পরিজন নিয়ে জীবনযাপন করতে হয় ।

★ বাংলাদেশ পুলিশের ছুটি :-
৩৬৫ দিনে এক বছর আমরা সবাই জানি ! ৩৬৫ দিনের কতোটা দিন একজন পুলিশ কনস্টবল থেকে এস আই, বা ইন্সপেক্টর তার পরিবারকে সময় দিতে পারে ? অনেকে হয়তো জানেন অনেক দিন, কতো দিন কেউ সঠিক জানেন না ! বিশেষ করে কনস্টবল ৩৬৫ দিনে (এক বছরে) মাত্র বিশ দিন ছুটিও ঠিক মতো তার পরিবারের বাবা – মা , স্ত্রী – সন্তানদের সাথে ভোগ করিতে বা সময় দিতে পারে না ! মহামান্য রাষ্ট্রপতি – মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে যদি প্রশ্ন রাখা হয় যে, একটা পরিবারে স্ত্রী -সন্তানদের সাথে সময় দেয়া, ছেলে- মেয়েদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করা, পারিবারিক অনন্যা কাজ করার জন্য ৩৬৫ দিনে ২০ দিন বা তার কম সময় কি যথেষ্ট ? এই ২০ দিন ছুটি ৪ ভাগে ৫ দিন বা ৭দিন করে যেতে হয় , তাও অনেক আকুতি – মিনতি করে অফিসারের পিছনে পিছনে চার – পাচ দিন ঘুরে ! নিজের ছুটি নিজে কখনোই সহজে যাওয়া যায় না, ছুটি যেতে চাইলেই মনে হয় অফিসারের জমি জমা জোর করে নিতে চাচ্ছি বা তার পরিবারের …..—- । এতো অল্প বেতনের চাকরী করে নিজের পরিবারকে যদি সময় দিতে না পারি , টাকা দিয়ে অন্য মানুষকে দিয়ে কাজ করানো কি কখনো সম্ভব ? আমারা সবাই জানি বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সৈনিকরা ৩৬৫ দিনে (এক বছরে) ৮০ দিনেরও বেশি ছুটি ভোগ করিতে বা যেতে পারে ! সেনাবাহিনীর সৈনিক রা এক সঙ্গে ০২ (দুই মাস) ছুটি নিজ বাড়িতে ভোগ করিতে পারে , সরকারি অনন্য কর্মচারী রা সকাল ৮ হতে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত অফিস করে , তারপর আবার শুক্রবার- শনিবার বন্ধ পরিবারকে যথেষ্ট সময় দিতে পারেন , তারপর আবার ইচ্ছে করলেই নিদিষ্ট ছুটির যে কোন মেয়াদের ছুটি যেতে পারে ! বাংলাদেশ পুলিশকেই বাংলাদেশের সকল প্রকার আইন – শৃঙ্খলা সর্বক্ষণ বজায় রাখতে হয় , এদেশের মানুষের জান -মালের নিরাপত্তার জন্য বেশী শ্রম দিতে হয়। সে জন্যই মনে হয় বাংলাদেশ পুলিশই বেশি বৈষম্যর শিকারও হন বেশি ।

★ কিছু কথা :-
বাংলাদেশ পুলিশকে বিগত সকল ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল কিংবা সরকার

Print Friendly, PDF & Email

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

Comments are closed.




© All rights reserved © MKProtidin.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com